১৩ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং
Breaking::

Daily Archives: October 5, 2016

ছাত্রলীগের সন্ত্রাসে দেশ আজ মৃত্যুপুরী : মির্জা ফখরুল

untitle

সরকারি দলের প্রশ্রয়েই ছাত্রলীগ দেশজুড়ে সন্ত্রাসী কার্যক্রম চালাচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। আজ বুধবার রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে চিকিৎসাধীন কলেজ ছাত্রী খাদিজা বেগম নার্গিসকে দেখার পর বিএনপি মহাসচিব অভিযোগ করেন, সরকারি দলেরই প্রশ্রয়েই এসব সন্ত্রাসী ঘটনা ঘটছে। ছাত্রলীগের লাগাতার সন্ত্রাস, অপহরণ, চাঁদাবাজী ও খুনের ঘটনায় দেশের শিক্ষাঙ্গনসহ গোটা দেশটাই এখন মৃত্যুপুরী।

উল্লেখ্য, গত সোমবার বিকেলে সিলেটে এমসি কলেজ ক্যাম্পাসে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক বদরুল আলম খাদিজাকে প্রকাশ্যে কুপিয়ে গুরুত্বর জখম করে। গুরুতর অবস্থায় তাকে এখন রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালের আইসিউতে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। তিনি সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের স্নাতক দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী।

আজ বুধবার দুপুরে হাসপাতালে খাদিজাকে দেখার পর অপেক্ষমাণ সাংবাদিকদের কাছে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, একটা ভয়াবহ মানবতাবিরোধী ঘটনা ঘটেছে, সিলেটের মেয়ে খাদিজা মহিলা কলেজের ছাত্রী, সে পরীক্ষা দিতে এসেছিলো এমসি কলেজে। সেখানে তাকে নির্মমভাবে, অমানবিকভাবে, নরপিচাশের মতো ছাত্রলীগের একজন নেতা তাকে হত্যার উদ্দেশে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়েছে, জখম করেছে। সে সম্পূর্ণ অচেতন অবস্থায় আছে।

তিনি বলেন, এই ঘটনা থেকে আবারো প্রমাণিত হয়েছে যে সন্ত্রাসীরা কোথায় প্রশ্রয় পাচ্ছে এবং তারা কীভাবে সন্ত্রাস চালিয়ে যাচ্ছে।

দেশের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতিশীল অবস্থার জন্য সরকারি দলকে দায়ী করে তিনি বলেন, সিলেটের খাদিজার ঘটনা শুধু নয়, ইতোমধ্যে দেশে আরো বহু ঘটনা ঘটেছে। এগুলোতে এটাই প্রমাণিত হয় যে, বর্তমান আই্নশৃঙ্খলা পরিস্থিতি সম্পূর্ণভাবে ভেঙে পড়েছে এবং সেটা দূঃখজনকভাবে সরকারি দলের প্রশ্রয়েই এই ঘটনাগুলো ঘটছে।

অস্ত্রোপচারের পর স্কয়ার হাসপাতালের ডেপুটি মেডিক্যাল ডিরেক্টর ডা. মির্জা নিজামউদ্দিন সাংবাদিকদের বলেছিলেন, তার অবস্থা খুবই সঙ্কটাপন্ন। তার মাথায় গুরুতর আঘাত লেগেছে। মাথার খুলি ভেদ করে ব্রেইনে ইনজুরি হয়েছে।

গণমাধ্যমে দেয়া এক বিবৃতিতে মির্জা ফখরুল দলের পক্ষে বলেন, ক্ষমতার দাপটে দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোকে বর্তমানে ছাত্রলীগের দলীয় কার্যালয়ে পরিণত করা হয়েছে। ছাত্রলীগের লাগাতার সন্ত্রাস, অপহরণ, চাঁদাবাজী ও খুনের ঘটনায় দেশের শিক্ষাঙ্গনসহ গোটা দেশটাই এখন মৃত্যুপুরী। বর্তমান ক্ষমতাসীনদের আমলে সিলেটে ছাত্রলীগ নেতা কর্তৃক কলেজ ছাত্রী খাদিজা আক্তার নার্গিসকে নির্মমভাবে কুপিয়ে গুরুতর আহত করার ঘটনা দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে ছাত্রলীগের অব্যাহত নৈরাজ্যের একটি খণ্ড চিত্র মাত্র।

তিনি বলেন, বর্তমান শাসকগোষ্ঠী ছাত্রলীগের অপকর্মের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় পেশীশক্তির জোরে দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে সাধারণ ছাত্র-ছাত্রীরা সশস্ত্র ছাত্রলীগ কর্তৃক নির্যাতন নিপীড়ণ, খুন, ধর্ষণ ও সম্ভ্রমহানীর শিকার হচ্ছে। সিলেটে কলেজ ছাত্রীকে নার্গিসকে চাপাতি দিয়ে কোপানোর ঘটনায় নিন্দা জানানোর ভাষা আমার জানা নেই।

খাদিজার ওপর আক্রমনকারীর শাস্তি দাবি করে তিনি বলেন, আমি আমার দলের পক্ষ থেকে এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। অবিলম্বে হত্যার উদ্দেশ্যে যে আক্রমণ করেছিলো, এর তদন্ত করে এই আক্রমকারীকে আইনের আওতায় আনার জন্য জোর দাবি জানাচ্ছি।

খাদিজা আক্তার নার্গিসের আশু সুস্থতা কামনা করেন বিএনপি মহাসচিব।

কলেজ ছাত্রী খাদিজার ওপর বর্বর হামলায় শিবিরের নিন্দা

unti

ঢাকা: সিলেট সরকারী মহিলা কলেজ ছাত্রী নার্গিস বেগম খাদিজার উপর ছাত্রলীগ সন্ত্রাসী বদরুল ইসলামের বর্বর হামলার হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ এবং অবিলম্বে ছাত্রলীগ সন্ত্রাসীর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানিয়ে বিবৃতি প্রদান করেছে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির।

এক যৌথ বিবৃতিতে ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি আতিকুর রহমান ও সেক্রেটারী জেনারেল ইয়াছিন আরাফাত বলেন, একজন ছাত্রীর উপর নৃশংস হামলা চালিয়ে ছাত্রলীগ সন্ত্রাসী যে বর্বরতার পরিচয় দিয়েছে তার নিন্দা জানানোর ভাষা আমাদের জানা নেই। গত সোমবার বিকেলে এমসি কলেজ ক্যাম্পাসে সরকারি মহিলা কলেজের ডিগ্রী ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী নার্গিস বেগম খাদিজার উপর হামলা চালায় শাবি ছাত্রলীগের সহ সম্পাদক বদরুল ইসলাম। এসময় চাপাতি দিয়ে উপর্যুপুরি কুপিয়ে খাদিজাকে গুরুতর আহত করে। মারাত্মক আহত ছাত্রীটি এখন জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে আছে। ডাক্তার তার বাঁচার সম্ভবনা ক্ষীণ বলে জানিয়েছে। এর মাধ্যমে ছাত্রলীগের সন্ত্রাসের আরেক ভয়ানক নমুনা দেখল জাতি। এই নজীর বিহীন নৃশংসতা ছাত্রলীগের প্রতি অবৈধ সরকারের লাগামহীন অনৈতিক মদদেরই প্রতিফলন। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে ছাত্রলীগ কতটা বেপরোয়া তার সর্বশেষ নজির এই বর্ববরচিত হামলা। আমরা এই হামলার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি।

নেতৃবৃন্দ বলেন, সরকারের প্রত্যক্ষ মদদে ছাত্রলীগ ক্যাম্পাসে হাজারো ছাত্র-ছাত্রীর জীবনকে জিম্মি করে রেখেছে। এই সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের ধারাবাহিক নৃশংসতায় ক্যাম্পাস গুলো বার বার রক্তাক্ত হচ্ছে। অথচ শুধুমাত্র ছাত্রলীগ পরিচয়ের কারণে তার কোন একটির বিচার আজ পর্যন্ত হয়নি। ফলে আজ একজন নিরীহ ছাত্রী পর্যন্ত ছাত্রলীগের নৃশংসতা থেকে রেহাই পায়নি। সরকারের এই অনৈতিক মদদ ও বিচার হীনতার সংস্কৃতি একদিকে ছাত্রলীগ সন্ত্রাসীদের আরও উস্কে দিচ্ছে অন্যদিকে হাজারো শিক্ষার্থীর জান-মাল ও শিক্ষা জীবন হুমকির মুখে ফেলে দিয়েছে। কিন্তু ক্যাম্পাসগুলোতে এই ধরণের সন্ত্রাসীমুলক কর্মকান্ড আর চলতে দেয়া যায় না। আমরা অনতি বিলম্বে ছাত্রলীগের সকল সন্ত্রাসী কর্মকান্ড নিষিদ্ধের জোর দাবি জানাচ্ছি। সেই সাথে হামলাকারী ছাত্রলীগ সন্ত্রাসী বদরুল ইসলামের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী করছি। কোন দলীয় পরিচয়ের কারণে সে যেন ছাড়া না পেয়ে যায়। অন্যদিকে গুরুতর আহত ছাত্রী নার্গিসকে আরো উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থা করার জন্য সরকারের প্রতি দাবী জানাচ্ছি। সর্বোপরি প্রতিটি ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পর্যাপ্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে প্রশাসনের প্রতি আহবান জানাচ্ছি।

-বিজ্ঞপ্তি